ভারতে মুসলমানদের জুম্মার নামাজ পড়তে বাধা

ভারতে মুসলমানদের জুম্মার নামাজ পড়তে বাধা

ভারতের রাজধানী দিল্লির অপেক্ষাকৃত সচ্ছল শহরতলী গুরগাঁওয়ে গত তিন মাস ধরে প্রতি শুক্রবার জনসমক্ষে মুসলমানদের নামাজ পড়ায় বাধা দেওয়ার জন্য হিন্দু ডানপন্থী গোষ্ঠীর একদল লোক নিয়মিত জড়ো হচ্ছে।

তারা শোরগোল করে দাবি করছে যে খালি জায়গাগুলোয় নামাজ আদায় বন্ধ করতে হবে। খালি জায়গা বলতে তারা মূলত বোঝাচ্ছেন কার পার্ক, কারখানা, বাজার এবং কারখানার কাছে সরকারী মালিকানাধীন প্লট এবং আবাসিক এলাকা - যেখানে শ্রমিক শ্রেণীর মুসলমান সম্প্রদায়ের মানুষেরা বছরের পর বছর ধরে নামাজ পড়ে আসছেন।

তারা শ্লোগান দিয়ে বলছেন যে যানবাহন পার্ক করে এবং কড়া ভাষা ব্যবহার করে যেন মুসলমানদের প্রবেশে বাধা দেওয়া হয়। এ সময় তারা মুসলমানদের জিহাদি এবং পাকিস্তানি বলেও সম্বোধন করেন। বর্তমানে সেখানে পুলিশের নিরাপত্তায় নামাজ অনুষ্ঠিত হয়।

স্থানীয় কমিউনিটি গ্রুপ গুরগাঁও মুসলিম কাউন্সিলের সহ-প্রতিষ্ঠাতা আলতাফ আহমেদ বলেছেন, "একটি ভীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। গুরগাঁওয়ে এমনটা ঘটবে তা আমরা কখনোই ধারণা করিনি।"

দিল্লির প্রায় ১৫ মাইল দক্ষিণে অবস্থিত গুরগাঁও শহরের একটি অংশ গত তিন দশকেরও কম সময়ের মধ্যে অজপাড়াগাঁ থেকে একটি সমৃদ্ধ বাণিজ্যিক শহরতলীতে পরিণত হয়েছে। শহরের প্রতিটি এলাকা এখন চকচকে কাঁচ-এবং-ক্রোম অফিস টাওয়ার, বিলাসবহুল দোকান এবং সুউচ্চ অ্যাপার্টমেন্টে পূর্ণ।

একে সরকারি কর্মকর্তারা "মিলেনিয়াম সিটি" অর্থাৎ সহস্রাব্দের শহর হিসেবে অভিহিত করেন - যেখানে বর্তমানে ১০ লাখেরও বেশি মানুষের বসবাস। এরমধ্যে হোয়াইট কলার থেকে শুরু করে ব্লু কলার অর্থাৎ পেশাজীবী থেকে শ্রমিক সব ধরণের মানুষ রয়েছেন।

এদের মধ্যে আনুমানিক পাঁচ লক্ষ মুসলমান নির্মাণ শ্রমিক, মেরামত শ্রমিক এবং পরিচ্ছন্নতাকর্মী হিসেবে কাজ করেন এবং ওই এলাকায় বসবাস করেন। কিন্তু গুরগাঁওয়ে নামাজ পড়া নিয়ে নতুন করে কোন্দল দেখা দিতে শুরু করেছে।

"আমরা মুসলিম বা নামাজের বিরুদ্ধে নই। কিন্তু প্রকাশ্যে প্রার্থনা করা হল 'ল্যান্ড জিহাদ'," প্রতিবাদকারী হিন্দু গোষ্ঠীর অন্যতম নেতা কুলভূষণ ভরদ্বাজ এ কথা বলেন। সূত্র: বিবিসি