সুব্রতর চিকিৎসার অর্থ সংগ্রহে বিতর্ক প্রতিযোগিতা

সুব্রতর চিকিৎসার অর্থ সংগ্রহে বিতর্ক প্রতিযোগিতা

শাবি সংবাদদাতা: শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবি) সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ২০০৫-০৬ শিক্ষাবর্ষের সাবেক শিক্ষার্থী সুব্রত কুমার সাহার পায়ের চিকিৎসার অর্থ সংগ্রহের জন্য বিতর্ক প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে শাহজালাল ইউনিভার্সিটি ডিবেটিং সোসাইটি (এসইউডিএস)। ‘SUDS Fundraiser Divisional BP-2021’ শিরোনামে বিতর্ক প্রতিযোগিতাটি ১৭ ও ১৮ মে অনলাইনে অনুষ্ঠিত হবে। এই অনলাইন প্রতিযোগিতাটি ডিস্কর্ড অ্যাপের মাধ্যমে পরিচালনা করা হবে। 

জানা যায়, এসইউডিএস আয়োজিত এই প্রতিযোগিতায়  সিলেট বিভাগের স্কুল,কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল সাবেক ও বর্তমান বিতার্কিক অংশগ্রহণ করতে পারবেন।বিতর্ক প্রতিযোগিতাটি ২৪টি দলের অংশগ্রহণে বাংলা ব্রিটিশ পার্লামেন্টারি ধারায় আয়োজন করা হবে। প্রতিটি দলে দুইজন সদস্য বিতর্কে অংশ নিতে পারবে। প্রত্যেক দলের জন্য নিবন্ধন ফি নির্ধারণ করা হয়েছে চারশ টাকা। বিতর্ক প্রতিযোগিতাটির জন্য প্রাক-নিবন্ধন করা যাবে ৬ মে পর্যন্ত। নির্ধারিত নিবন্ধন ফি'র বাইরেও কেউ চাইলে সুব্রতর জন্য আর্থিক অনুদান পাঠাতে পারবেন। অনুদান  পাঠানোর ঠিকানা : বিকাশ – ০১৯৪১৭৩৬০৭৬ ; রকেট –০১৯৪১৭৩৬০৭৬-৭। এ বিতর্ক প্রতিযোগিতার নিবন্ধন ফি ও  অন্যান্য অনুদান থেকে প্রাপ্ত সম্পূর্ণ অর্থ সুব্রত কুমার সাহার চিকিৎসার জন্য প্রদান করা হবে। 

বিতর্ক সংগঠনটির সভাপতি নাহিদ হাসান নাঈম বলেন, 
শাহজালাল ইউনিভার্সিটি ডিবেটিং সোসাইটি প্রতিনিয়ত বিভিন্ন আয়োজন করে থাকে। তবে এবারের আয়োজনের উদ্দেশ্য একটি মানুষের হাসিমুখ দেখতে পারার সামান্য চেষ্টা টুকু করা।  সিলেটের সাবেক-বর্তমান সকল বিতার্কিককে অনুরোধ সুব্রত ভাই এর কঠিন সময়ে পাশে থাকার জন্য। শুধু বিতার্কিক নয়, যে কেউ চাইলে সাহায্যর হাত বাড়িয়ে দিতে পারেন।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের নভেম্বরে ভয়াবহ এক সড়ক দুর্ঘটনায় সুব্রতর ডান পা মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এরপর থেকে বাংলাদেশ ও ভারতের হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা নিচ্ছেন তিনি৷ চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী, স্বাভাবিকভাবে চলাচলের জন্য তার পায়ে তিনটি সফল অস্ত্রোপচারের প্রয়োজন৷ অস্ত্রোপচারগুলো কয়েকটি ধাপে ভারতের সর্বোদয় হসপিটাল অ্যান্ড রিসার্চ সেন্টারে করাতে হবে। তার পায়ের এ চিকিৎসার জন্য প্রয়োজন প্রায় ২৫ লাখ টাকা। তিনি বর্তমানে বেসরকারি একটি কলেজে শিক্ষকতা করছেন। তার পক্ষে চিকিৎসার এই ব্যয়ভার একা বহন করা সম্ভব নয়। এজন্য সকলকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।